সোমবার, ৩০শে মার্চ, ২০২০ ইং, বিকাল ৩:১৪

শিরোনাম :
পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রীর নির্দেশে ছাত্রলীগ নেতা নিক্সন সজিবের মানবিক উদ্যোগ আমতলীতে করোনায় কর্মহীন মানুষের মধ্যে চেয়ারম্যানের খাদ্য সহায়তা প্রদান কুয়াকাটা পর্যটন শিল্পে ধস প্রতিদিন লোকসান অর্ধকোটি টাকা জেলা প্রশাসন বরিশালের পক্ষ থেকে কর্মহীন শতাধিক রিক্সা চালকদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ আমতলীতে ৩৫০ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তার চাল ডাল বিতরণ বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে করোনা ইউনিটে ২জনের মৃত্যু বরিশালে দুই সাংবাদিককে লাঠিপেটা, তিন পুলিশ সদস্য ক্লোজড বরিশালে করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি হওয়া এক নারী রোগীর মৃত্যু বরিশালে করোনা প্রচারনার ছবি তুলে যাওয়া দুই ফটো সাংবাদিককে ইউএনও’র সামনে পেটাল পুলিশ ছিন্নমূল নগরবাসীকে পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আহার প্রদান
সকলে সচেতন হোন সুস্থ থাকুন,সরকারের নির্দেশনা মেনে চলুন : আরিফিন মোল্লা

সকলে সচেতন হোন সুস্থ থাকুন,সরকারের নির্দেশনা মেনে চলুন : আরিফিন মোল্লা

dynamic-sidebar

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা করোনা ভাইরাসে স্থবির হয়ে পড়েছে জনজীবন। তার প্রভাব পড়েছে বাংলাদেশেও। এরইমধ্যে দেশে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন ২৭ জন আর মৃত্যু হয়েছে ২ জনের। এমন ভয়াবহ পরিস্থিতিতে দেশের মানুষকে করোনা নিয়ে সতর্কবার্তা দিলেন বরিশালের কৃতি সন্তান ও বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের উপ-কমিটির সদস্য যুববন্ধু আরিফিন মোল্লা।

 

রোববার (২২ মার্চ) নিজের অফিসিয়াল ফেসবুকে এক ভিডিও আপলোড করেন বরিশালের কৃতি সন্তান যুববন্ধু তরুন এই আলীগ নেতা। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সেই ভিডিও বার্তায় আরিফিন মোল্লা বলেন, বর্তমান বিশ্বে মানুষের মৃত্যুর হার যেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে , তাতে করে সকলে একটা রেসের মধ্যে রয়েছে যে,কার দেশে কত বেশি মানুষের মৃত্যুর হার বৃদ্ধি পায়। তাই সবাই দেখছে। এদের দেখেও কি আমাদের কিছু শিক্ষণীয় নেই। নাকি আমরা অপেক্ষা করতেছি আমাদের সংখ্যা কবে বাড়বে? আল্লাহ মাফ করুক ।

 

 

আমরা এর ভয়াভয়তা বুঝতে পারছিনা। কেউ কেউ লিফলেট নিয়ে রাস্তায় নামতেছে সকলকে সতর্ক করার জন্য। আমরা মাইকিং এর মাধ্যমে মসজিদে যখন ইমাম সাহেবদের বয়ানের মাধ্যমে মানুষের মাঝে করোনা সম্পর্কে সচেতনতা মূলক কথা বার্তা সকলের মাঝে পৌছানো যেতে পারে। আমরা যদি নবীর সুন্নত মেনে ঈমানের সাথে চলা ফেরা করতাম এবং ইসলাম শরিয়ত মোতাবেক কাজ কর্ম বা পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখতাম তাহলে আমাদের এরকম দিন দেখতে হতনা। আমাদের মধ্যে এতো ভয় কাজ করছে কেনো?  কারণ আমরা পরিচ্ছন্ন না ।

 

 

কিছুদিন পূর্বে আমি একটা স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম যে, এয়ারপোর্টে রেড এলারট জারি করা হোক। কারন বাহিরের দেশ থেকে যারা আসতেছে তারা নিজেরাও জানেনা যে তাদের সাথে ভাইরাসটা সাথে নিয়ে আসছে কিনা।এমনকি আমরাও জানিনা যে তার  শরীরে ভাইরাস আছে কিনা। আমরা দিব্বি তার সাথে চলাফেরা এবং মেলামেশা করছি এতে করে আমাদের দেশের মানুষও এই ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে। সেই সময় হতে যদি করা নিরাপত্তার মাধ্যমে এয়ারপোর্ট পরিচালনা করা হতো তাহলে আজকে যে কয়জন করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে তাও হয়তো আক্রান্ত হতোনা।

 

 

বাংলাদেশের শাহ জালাল এয়ারপোর্টে  প্রথমদিকে  কিন্তু এতটা কড়া নিরাপত্তা  ছিলোনা, আর এ কারণেই দুই এক সপ্তাহ আগে যারা বাহিরের দেশ  থেকে বাংলাদেশে এসেছে তারা কিন্তু দেশে এসেই যার যার পরিবারের কাছে চলে গেছে। তাতে করে সেই সকল বিদেশ ফেরত প্রবাসীদের মাধ্যমে যেমন তার পরিবার ঝুঁকিতে পরেছে ঠিক তেমনি তারা যে সকল মানুষদের সাথে মেলামেশা বা সংস্পর্শে এসেছে সবাই কিন্তু ঝুকিতে রয়েছে।এমন হাজারো প্রবাসীর কোনো অস্তিত্বই এখন খুজে পাওয়া সম্ভব না। আর যখন ফেইসবুক,ইউটিউব,এবং গণমাধ্যমের দ্বারা যখন করোনা ভাইরাস নিয়ে আলোচোনা তৈরী হলো এবং কোয়ারেন্টাইনে থাকার বিষয়ে সরকার পদক্ষেপ গ্রহন করলো তখন তারা আরো ভয় পেয়ে নিজেকে লুকিয়ে রাখলো।তাদের ধারনা হতে শুরু করলো যে ,কোয়ারেন্টাইনে নিয়ে আমার সাথে কিনা কি করে, আমার পরিবারের থেকে আমাকে আলাদা করে কি করবে ।

 

 

 

এই সকল বিষয় ভেবেই তারা কোয়ারেন্টাইনে না গিয়ে দেশকে ভয়াভহ ঝুঁকির মধ্যে ফেলেছে।আমরা বাংলাদেশের সাধারন মানুষ এরকম ভাইরাসের সম্মুখীন কখনই হইনি। তাই কি করলে ভালো হবে কি করলে আমরা সুস্থ থাকবো সেইটা ভাবতেও আমাদের কিছুটা সময় লাগবে। আল্লাহ মালিক আমাদের মনোবলকে আরো শক্তিশালী করুক,এ মহামারি ভাইরাসে আমরা আতঙ্কিত না হয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ এবং সরকারের দেয়া নির্দেশনা মেনে নিজেকে সুস্থ রেখে পরিবার,এলাকা এবং দেশের সকলের সুরক্ষার স্বার্থে কাজ করতে পারি আল্লাহর কাছে আমরা এই প্রার্থনা করি । মসজিদ সম্পর্কে অনেকের ভুল ধারনা বা গুজব শুনেছেন যে, মসজিদে যাওয়া যাবেনা। এরকম কোনো বিষয় বা সিদ্ধান্ত বাংলাদেশে এখনো নেয়া হয়নি। বরং আপনাদের এলাকায় যদি কোনো ব্যাক্তি করোনায় আক্রান্ত রোগী থাকে তাকে মসজিদে যেতে নিষেধ করবেন এবং তাকে ঘড়ে বসে নিজের জন্য এবং দেশের মানুষের জন্য দোয়া করতে বলবেন। অন্যদিকে আপনারা মসজিদে অবশ্যই যাবেন তবে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন ভাবে ।

 

 

বাসায় থাকাকালিন ওযু করবেন এবং মসজিদে গিয়েও আবার ওযু করবেন, ওযু করে বের হয়ে জামাতে নামজ আদায় করার পরে প্রয়োজনে আবার ওযু করে মসজিদ হতে বের হবেন। পরবর্তীতে বাসায় আসার পরে পরিহিত জামাকাপড় খুলে নিজেকে পরিচ্ছন্ন করে হ্যান্ড ওয়াশ বা সাবান  দিয়ে হাত ভালভাবে ধুয়ে নিবেন। সবাইকে শান্ত থেকে এই পরিস্থিতি সামলানোর জন্য  অনুরোধ জানাচ্ছি। গুজবে কেউ কান দিবেননা,আমরা এমন কিছু করবোনা যাতে আমাদের ক্ষতি হয়।

 

 

 

উপরে আল্লাহ এবং নিচে আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আমরা আস্থা রাখি কারণ আমাদের নেত্রী আমাদের জন্য যা করবেন অবশ্যই তা আমাদের জন্য শ্রেয় এবং ভালোর জন্যই করবেন। আপনারা এর আগেও নিশ্চই জেনেছেন আমাদের নেত্রী ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৮ ঘন্টাই আমাদের জন্য কাজ করে যান। উনি এখনো বাংলাদেশের জনগনকে নিয়ে চিন্তিত। প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার এই যুদ্ধে সে একা নয় আমরা সকলেই তার সাথে আছি এই চিন্তা ভাবনা মাথায় রেখে হলেও অন্তত পক্ষে আপনারা তার দেয়া নির্দেশনাবলী মেনে চলুন। সকলের চিন্তা ভাবনা এক রকম করে ফেলুন ,হিংসা বিদ্বেষ ভুলে কারো দোষ গুন না ধরে একত্রিত হয়ে এই সংকটময় পরিস্থিতি সামলাতে সরকারকে সাহায্য করুন।

 

 

আমাদের সকলের মধ্য হতেই করোনা ভাইরাস নির্মূলে কিছুনা কিছু চিন্তা ভাবনা আসতে পারে সেগুলো আমরা আমাদের স্ব স্ব ডিসি,ওসি,মেয়র,এমপি কাউন্সিলর,চেয়ারম্যান,মেম্বারদের সাথে আলোচনা করতে পারি সেখান থেকে তারাও সেই সকল বিষয়ের উপরে কোনো না কোনো একশন গ্রহনের মাধ্যমে সফলতা অর্জন করতে সক্ষম হতে পারে। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন এছাড়াও করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি এবং বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করার জন্য ঢাকা দক্ষিন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম ও বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাদ সাদিক আব্দুল্লাহকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি ।

 

 

এছাড়াও বাংলাদেশের সকল এমপি,মন্ত্রীদের কাছে অনুরোধ করছি যাতে করে তারা তাদের নিজ নিজ এলাকার হাসপাতালে আইসোলিয়েসন স্থান তৈরী করা এবং করোনা শনাক্তকরনের জন্য কিট পাঠানোর ব্যাবস্থার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ জানাচ্ছি।

 

 

পরিশেষে আরিফিন মোল্লা তার নিজের জন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন এবং সকলের সু স্বাস্থ্য কামনা করেছেন বিশেষ করে তিনি সকলের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন যাতে করে সকলে আল্লাহর কাছে তাওবা করি সকল বিপদে রক্ষার একমাত্র মালিক আল্লাহ। তিনি বলেন আমরা যতো বেশি পারবো আল্লাহকে স্বরন করবো ,ইনশা-আল্লাহ এই মহামারি ভাইরাস থেকে নিশ্চই আল্লাহ আমাদেরকে হেফাজত করবেন আমিন।

 

আরিফিন মোল্লার ফেইসবুক লাইভ

Posted by Arifin Mollah on Sunday, March 22, 2020

আমাদের ফেসবুক পাতা

© All rights reserved © 2018 DailykhoborBarisal24.com

Desing & Developed BY EngineerBD.Net

shares