মঙ্গলবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং, রাত ৩:০১

বরিশালে রুগীকে সেবা না দিয়ে ধাক্কা দিয়ে বের করে দিলেন মেডিকেল অফিসার সনিয়া

বরিশালে রুগীকে সেবা না দিয়ে ধাক্কা দিয়ে বের করে দিলেন মেডিকেল অফিসার সনিয়া

dynamic-sidebar

বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ বাবুগঞ্জে রহমতপুর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রুগীকে সেবা না দিয়ে গলা ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ডাঃ সৈয়দা সুলতানা পারভীন (সনিয়া)’র বিরুদ্ধে। এছাড়াও অভিযোগ রয়েছে সেবা নিতে আসা রুগী, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত পরিবার কল্যাণ সহকারি, পরিবার কল্যাণ পরিদর্শক, পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক, সেকমো ও ফার্মাসিষ্টদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরনের।

ডাঃ সৈয়দা সুলতানা পারভীন (সনিয়া) উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ে কর্মরত রয়েছেন। উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়টি উপজেলা সদর থেকে প্রত্যন্ত অঞ্চলে হওয়ায় অনুমতি সাপেক্ষে সপ্তাহে রবি ও বৃহস্পতিবার সদর ইউনিয়ন রহমতপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রুগীদের সেবা দিয়ে থাকেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রহমতপুর ইউনিয়নের রাজগুরু গ্রামের অনিকের স্ত্রী বৃষ্টি বেগম(২০) জন্মনিয়ন্ত্রন পদ্ধতি ৩ বছর মেয়াদী ইমপ্লান্ট গ্রহন করে। তার শারিরীক সমস্যার কারনে গত রবিবার রহমতপুর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইমপ্লান্ট খোলা ও চিকিৎসার জন্য আসে। ডাঃ সনিয়া মুমুর্ষ রুগী বৃষ্টিকে সকাল ১০ টা থেকে ২ টা পর্যন্ত বসিয়ে রেখে ওটি থেকে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়।

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক কর্মচারি বলেন, সনিয়া ম্যাডাম অকথ্য ভাষায় গালিগালাজসহ হেয়প্রতিপন্য করে স্টাফদের সাথে কথা বলে। প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতাদের নাম ব্যবহার করে হুমকি ধামকি দেওয়ার নজির রয়েছে তার।এব্যপারে জানতে ডাঃ সৈয়দা সুলতানা পারভীন (সনিয়া)’র মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও ফোন উঠাননি।

এঘটনায় গত সোমবার বৃষ্টি বাবুগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান কাজী ইমদাদুল হক দুলাল, ্উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুজিত হাওলাদার ও উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারজানা বিনতে ওহাবের কাছে মৌখিক অভিযোগ করে। সাবেক মুক্তিযোদ্ধা ডেপুটি কমান্ডার করিম হাওলাদার বলেন,বিষয়টি সম্পর্কে জানি। তিনি রুগীদের সাথে খারাপ ব্যবহারের অধিকার রাখে না। কর্তৃপক্ষকে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনুরোধ করছি।

মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারজানা বিনতে ওহাব বলেন, এই উপজেলায় কেউ দায়িত্বে অবহেলা করলে জবাবদিহিতার আওতায় আনা হবে। উপজেলা দূর্নীতি মুক্ত করতেই পরিষদে বসেছি।

উপজেলা চেয়ারম্যান কাজী ইমদাদুল হক দুলাল এঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মানুষের সেবা দেয়ার জন্য সরকার তাকে এখানে নিয়োগ দিয়েছে অসৌজন্য মূলক আচরনের জন্য নয়।

আমাদের ফেসবুক পাতা

© All rights reserved © 2018 DailykhoborBarisal24.com

Desing & Developed BY EngineerBD.Net

shares