মঙ্গলবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং, রাত ৩:৫৯

বরিশালে মরণ নেশা ইয়াবার চেয়েও ভয়ঙ্কর রূপ নিচ্ছে ধর্ষণ (!)

dynamic-sidebar

এম.কে. রানা ॥ চলতি বছরের গত সাড়ে তিন মাসে সারাদেশে ৩৯৬ জন নারী-শিশু হত্যা, ধর্ষণ ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। বাংলাদেশ শিশু অধিকার ফোরামের (বিএসএএফ) তথ্যানুযায়ী, চলতি বছরের তিন মাসে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৬৪ জন শিশু। গত তিন মাসে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে ১৯ জন। আর ধর্ষণের ভয়াবহতা ছড়িয়ে পড়ছে দক্ষিণাঞ্চলেও। মানবাধিকার সংগঠনের হিসেব মতে, দক্ষিণাঞ্চলে গত সাড়ে তিন মাসে ধর্ষিত হয়েছে প্রায় শতাধিক নারী ও শিশু। মরণ নেশা ইয়াবার চেয়েও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে ধর্ষণ নামক সামাজিক এ ব্যাধি।

 

বিভিন্ন নারী সংগঠন, মানবাধিকার সংগঠন, আইনজীবী, আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও শিক্ষক সমাজ সকলেই এ ব্যাপারে দ্রুত বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়া, আইণ-শৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোরতা এবং জনসচেতনতার উপর গুরুত্বারোপ করেছেন। পথে, ঘাটে, স্কুলে, মাদ্রাসায়, কলেজ কিংবা বসতঘর কোনখানেই নিরাপদ নয় নারীরা। কোনো কোনো সময় ধর্ষণ-গণ-ধর্ষণের পর খুনের শিকারও হতে হয়! গত কয়েক মাস পত্রিকার পাতায় চোখ বুলালেই ধর্ষণের মতো জঘন্য খবর পাওয়া যায়।

 

দিন দিন অপ্রিতিরোধ্য হচ্ছে এই জঘন্যতম কাজটি। নারীদের কাছে আজকাল ‘হায়েনা’ যতটা না ‘ভয়ঙ্কর’, তার চেয়ে বেশি ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে ‘পুরুষ’ যা উদ্বেগের কারণ। ছাত্রী, শিশু, যুবতী, আয়া, বুয়া, গৃহবধূ, প্রতিবন্ধী কেউই যেন আজকাল নিরাপদ নয়। সম্প্রতি ফেনীর সোনাগাজীতে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার প্রতিবাদে সারাদেশে এখনো বিক্ষোভ ও মানববন্ধন চলছে। ওই সব মানববন্ধন ও বিক্ষোভে বক্তারা এ ঘটনায় জড়িতদের কঠোর শাস্তির দাবী জানিয়েছেন। সূত্রমতে, বরিশালের হিজলা উপজেলার মেমানিয়া গ্রামে ৮ম শ্রেনীর এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। ধর্ষিতা ও তার পিতা বরিশাল প্রেসক্লাবে এসে সংবাদ সম্মেলন করে ধর্ষকের বিচার দাবী করেছেন।

 

জেলার মুলাদী উপজেলার প্রত্যন্ত চরকালেখান নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক ছাত্রীকে অপহরণের পর দুইদিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধর্ষণের ভিডিও চিত্র মোবাইল ফোনে ধারণ করে এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হলে ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়। বখাটে ও তার সহযোগীদের অব্যাহত হুমকির মুখে ঘটনার চারদিন পরেও মামলা দায়ের করতে সাহস পাচ্ছে না ধর্ষিতা ও তার পরিবারের সদস্যরা। ৩১ মার্চ বরিশালের গৌরনদী উপজেলার সুন্দরদী গ্রামের নবীনগর এলাকার এক বখাটে শারীরিক ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণ করেছে।

 

ঘটনার এক দিন পর শনিবার রাতে ধর্ষিতা প্রতিবন্ধীর মা বাদী হয়ে গৌরনদী মডেল থানায় মামলা করেছেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই রাতেই ধর্ষক কিশোর আল আমিন মাঝিকে গ্রেফতার করেছে। এদিকে ধর্ষণের ঘটনা এলাকায় জানাজানি হওয়ার পর গা-ঢাকা দিয়েছে আল আমিনের পরিবার। বরিশাল নগরীতে যৌতুক মামলার বাদী হিন্দু সম্প্রদায়ের এক নারী (৩০) গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই নারী বর্তমানে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। জানা গেছে, স্বামীর বিরুদ্ধে দায়ের করা যৌতুক মামলায় গত ১৬ এপ্রিল বরিশাল আদালতে হাজিরা দিয়ে বাসায় ফেরার পথে তাকে তুলে নিয়ে গণধষর্ণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে।

 

গত ১৫ এপ্রিল বরগুনার পাথরঘাটায় পর্যটন কেন্দ্র হরিণঘাটা বনে নিয়ে প্রেমের ফাঁদে ফেলে, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৮ম শ্রনীর এক স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার মূল আসামি জলিলকে আটক করেছে পুলিশ। গত ২ এপ্রিল পিরোজপুর সদর উপজেলার কদমতলা ইউনিয়নের খানাখুনিয়ারী গ্রামে মঙ্গলবার রাতে ১৪ বছরের এক ৮ম শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে দুই বখাটে। নির্যাতিতা কদমতলা জর্জ হাইস্কুলের ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী।

 

থানা পুলিশ রাতেই ওই স্কুল ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সদর হাসপাতালে প্রেরণ করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৌসুমী সুলতানা প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। গত ২৬ এপ্রিল সন্ধ্যায় ফুফুর বাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে যাওয়ার পথে ওঁৎ পেতে থাকা ধর্ষক কাওছার খান, এক সন্তানের জননী (২০)কে জোর পূর্বক মৃত্যুঞ্জয় মজুমদারের পুকুর পারে নিয়ে ধর্ষণ করে।

 

এক কলেজছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ কনস্টেবল ও মঠবাড়িয়া উপজেলার বয়াতীর হাট গ্রামের খালেক ঘরামীর ছেলে সাহেব আলী ঘরামীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। ওই ছাত্রী গত মঙ্গলবার রাতে মঠবাড়িয়া থানায় এ মামলা করেন। ধর্ষণে সহায়তার অপরাধে সাহেব আলীর বড় বোন বিলাসী বেগমকেও আসামি করা হয়েছে। পুলিশ বুধবার বিলাসী বেগমকে গ্রেফতার করেছে। গত রবিবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে বেসরকারি সংস্থা মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর রাফিজা শাহীনের মতে, ‘দেশে শিশুদের ওপর সহিংসতা বাড়ছে।

 

আমাদের কাছে যে পরিসংখ্যান আছে, তা খুবই উদ্বেগজনক। আমরা কেন শিশুদের জন্য নিরাপদ আবাস গড়

আমাদের ফেসবুক পাতা

© All rights reserved © 2018 DailykhoborBarisal24.com

Desing & Developed BY EngineerBD.Net

shares